ইয়াকিন পলিমারের শেয়ার বিওতে জমা: শিগগিরই লেনদেন শুরু

yakin
শেয়ারটাইম্‌স২৪ডটকমঃ লটারিতে বরাদ্দপ্রাপ্ত শেয়ার বিনিয়োগকারীদের বেনিফিসিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসাবে পাঠিয়েছে প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) লটারির প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা প্রকৌশল খাতের ইয়াকিন পলিমার লিমিটেড। সিডিবিএল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, লটারিতে প্রাপ্ত শেয়ার সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) মাধ্যমে আজ (৬ সেপ্টেম্বর) বিনিয়োগকারীদের নিজ নিজ বিও হিসাবে জমা হয়েছে। এখন কোম্পানিটির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দুই স্টক এক্সচেঞ্জ লেনদেনের তারিখ নির্ধারণ করবে বলে জানা গেছে।

এদিকে, তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই ১৫-মার্চ ১৬) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার প্রতি আয় বেড়েছে ইয়াকিন পলিমারের। তৃতীয় প্রান্তিকে অর্থাৎ নয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ১.০২ টাকা, শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৬৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫.৬৩ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৭৮ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ০.৩৫ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরে ছিল ১৪.৬১ টাকা।

আর গত তিন মাসে (জানুয়ারি -মার্চ, ১৬) প্রতিষ্ঠানটির ইপিএস হয়েছে ০.৪১ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.২৫ টাকা।

উল্লেখ্য, গত ১০ আগষ্ট সকাল সাড়ে ১০ টায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় ইয়াকিন পলিমারের আইপিও লটারির ড্র। এর আগে গত ১০ জুলাই থেকে ২০ জুলাই পর্যন্ত এ কোম্পানির আইপিওতে স্থানীয় ও প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা মিলে মোট ৮৯১ কোটি ৮ লাখ ১২ হাজার টাকার আবেদন জমা দেন যা মোট আবেদনের ৪৪.৪৫ গুণ।এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা জমা দিয়েছেন ৫১৫ কোটি ৯৫ হাজার টাকার আবেদন, ক্ষতিগ্রস্তরা জমা দিয়েছেন ৬০ কোটি ২৩ লাখ ১৫ হাজার টাকা, প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা দিয়েছেন ২৬ কোটি ৯২ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ডে জমা পরেছে ১৪৫ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। বিএসইসির ৫৭৩তম সভায় কোনো প্রকার প্রিমিয়াম ছাড়া এ কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রতি ৫০০ শেয়ার নিয়ে এর মার্কেট লট।

পুঁজিবাজারে ২ কোটি সাধারণ শেয়ার ছেড়ে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করে ইয়াকিন পলিমারের। উত্তোলিত টাকা দিয়ে মেশিনারিজ ক্রয়, কারখানা ও প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ এবং আনুষঙ্গিক খাতে ব্যয় করবে কোম্পানিটি। এদিকে উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি কোন প্রকার ঋণ পরিশোধ করবে না বলেও বিএসইসির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

৩০ জুন ২০১৫ হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১.৪১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৪.৬১ টাকা। কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং ফাস ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।