তাল্লু স্পিনিং মিলে কর্মবিরতি-বিক্ষোভ

tallu
শেয়ারটাইম্‌স২৪ডটকম: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি তাল্লু স্পিনিং মিলে কর্মনিরতি চলছে। ময়মনসিংহের গৌরীপুরের কলতাপাড়ায় অবস্থিত তাল্লু স্পিনিং মিলের শ্রমিকরা বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন দাবিতে মিলের ভেতর বিক্ষোভ করেছে।

শনিবার (৬আগস্ট) বেলা দুইটায় শ্রমিকরা কর্মবিরতি দিয়ে দিয়ে এই বিক্ষোভ করেছে বলে জানা গেছে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি ঠেকাতে মিলে গেটে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয় ও মিল সূত্রে জানা গেছে, তাল্লু স্পিনিং মিলে তিন শিফটে হাজার খানেক শ্রমিক কাজ করে। শনিবার মিলের শ্রমিকরা শ্রম আইনানুযায়ী বেতন, ঈদ বোনাস, মাতৃত্বাকালীন ৬ মাসের ছুটি, মাসের প্রথম ১ তারিখের মধ্যে বেতন দেয়াসহ বিভিন্ন দাবিতে কর্মবিরতি দিয়ে বিক্ষোভ করে। এসময় শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ ও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে পারে এমন খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা চালায়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক শ্রমিক বলেন, মিলে শ্রম আইন অনুযায়ী শ্রমিকদের বেতন দেয়া হয় না। শ্রম আইন অনুযায়ী আমরা বেশির ভাগ সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। গত বছরের দুই ঈদের বোনাস দেওয়া হয়নি। এখনো এবছরের জুন ও জুলাই মাসের বেতন বাকি রয়েছে। বেতনের কথা বললে মিল কর্তৃপক্ষ নানা টালবাহানা শুরু করেন।

শ্রমিকদের অভিযোগ, এই মিলে কাজ করে স্থানীয় শ্রমিকরা যে টাকা বেতন পায় ঠিক একই পদে কাজ করে তার চেয়ে দ্বিগুন বেতন পায় অন্য মিলের শ্রমিকরা। পত্রিকায় নাম আসলে চাকরি চলে যাবে এই আশঙ্কায় কেউ নাম প্রকাশ করে বক্তব্য দেয়নি।

মিলের একজন নারী শ্রমিক বলেন, তিন বছর ধরে এখানে চাকরি করি বেতন ২৩শ টাকা। আর পাশের ডেলটা মিলে চাকরির শুরুতেই ৩ হাজার টাকা বেতন দেওয়া হয়। অপর আরেক নারী শ্রমিক জানান, সন্তান জন্মদানের সময় তিন মাস মাতৃত্বকালীন ছুটি দিলেও কোনো বেতন দেওয়া হয়নি। বেতনের কথা বললে মিলের কর্তা ব্যক্তিরা অশ্লীল ভাষায় কথা বলে, পেটের দায়ে কাজ করি, তাই সব অপমান মুখ বুঝে সহ্য করতে হয়।

এদিকে মিলের শ্রমিকদের কর্মবিরতি ও বিক্ষোভের খবর পেয়ে শনিবার বিকাল পাঁচটায় শ্রমিকদের দাবিগুলো মেনে নেওয়ার জন্য স্থানীয় একটি পক্ষ মিল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করছে বলে জানা গেছে।

গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) আবু মো. ফজলুল করিম বলেন, বেতন-ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে তাল্লু মিলের ভেতরে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করছে। পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন আছে।

তাল্লু স্পিনিং মিলের ডিরেক্টর রফিকুল হক বলেন, শ্রমিকদের সব অভিযোগ সত্য নয়। জুলাই মাসের বেতন ও ইনক্রিমেন্টের কিছু টাকা বাকি রয়েছে। শ্রমিকদের অন্যান্য দাবিগুলো মেনে নেওয়ার বিষয়ে আলাপ-আলোচনা চলছে।