অনিয়মে অ্যালায়েন্স সিকিউরিটিজের লাইসেন্স বাতিল হয়েছে

bseclogo
শেয়ারটাইম্‌স২৪ডটকমঃ অনিয়মের জন্য লাইসেন্স বাতিল হয়েছে অ্যালায়েন্স সিকিউরিটিজের। বিএসইসি জানতে পেরেছে যে প্রতিষ্ঠানটি তার পরিচালক এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের এতো দিন ব্যবসায়ের সুযোগ সুবিধা দিয়ে এসেছে।

আজ মঙ্গলবার বিএসইসি অনিয়মের অভিযোগে অ্যালায়েন্স সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের স্টক-ব্রোকার এবং স্টক ডিলার রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট বাতিল করে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) সকল বিনিয়োগকারী এবং ট্রেডিং রাইট এনটাইটেলমেন্ট সার্টিফিকেট (ট্রেক) ধারক প্রতিষ্ঠানকে অ্যালায়েন্স সিকিউরিটিজের বিরুদ্ধে তাদের বৈধ দাবি মীমাংসা করতে বলেছে।

গত ২১ মে ২০১৯ কমিশন প্রতিষ্ঠানটির লাইসেন্স স্থগিত করে। বিএসইসি সেই সময় একটি তদন্তে অনেক অনিয়ম পেয়েছিল। প্রতিষ্ঠানটি তার পরিচালক এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের ব্যবসায়ের সুবিধা দিয়েছিল।

‌তদন্তে দেখা গেছে, নিয়ম লঙ্ঘন করে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভারসাম্য না থাকা সত্ত্বেও তারা তাদের প্রতিটি বেনিফিশিয়ারি অ্যাকাউন্টগুলো (বিও) থেকে অর্থ উত্তোলন করত এবং ঋণ সমন্বয় করত।

প্রতিষ্ঠানটি নিয়ম লঙ্ঘন করে বিনিয়োগকারীদের সমন্বিত গ্রাহক অ্যাকাউন্ট থেকে ১২.৯৭ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে এবং একটি ফিক্সড ডিপোজিট করেছে। এছাড়া তদন্তের সময় তদন্তকারীদের সহযোগিতা করেনি বলে বিএসইসি অভিযোগ করেছে।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অ্যালায়েন্স সিকিওরিটিজ অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের এক কর্মকর্তা শেয়ারটাইম্‌স২৪ কে বলেন, বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে প্রতিষ্ঠানটির লাইসেন্স বাতিল করার বিষয় একটি ভাল সিদ্ধান্ত।

তিনি বলেন, আরও তিন পরিচালক যারা এই কোম্পানির ৭৫% অংশীদার রয়েছেন তারাও এই অনিয়ম করেছেন এবং বিনিয়োগকারীদের প্রতারণা করেছে।

তিনি আরো বলেন, তারা বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে অর্থ পেয়েছিল তবে এটি সমন্বিত গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে জমা দেয়নি এবং তারা সমন্বিত গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টের টাকা দিয়ে বিনিয়োগকারীদের জন্য শেয়ার ক্রয় করত। এইভাবে তারা এই অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ উত্তোলন করে এবং বিনিয়োগকারীদের প্রতারণা করে।