তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর জন্য কর ব্যবধান ১৫ শতাংশ রাখার প্রস্তাব দেওয়া হবে: বিএসইসি চেয়ারম্যান

শেয়ারটাইম্‌স২৪ডটকমঃ  আগামী বাজেটে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ও তালিকাহীন কোম্পানির মধ্যে করের ব্যবধান ১৫ শতাংশ রাখার প্রস্তাব দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম।

আজ (২ ফেব্রুয়ারি) বিএসইসির হল রুমে প্রবাসী বাংলাদেশি ও বিদেশিদের বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগে আগ্রহী করার লক্ষ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে
রোড শো’ উপ‌লক্ষে আয়ো‌জিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্ত‌ব্যে তি‌নি একথা বলেন।

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, বহুজাতিক কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হলে তাদের রুলস রেগুলেশনের মানতে দুই থেকে তিন শতাংশ আরও খরচ বেড়ে যাবে। এতে করে তারা তালিকাভুক্ত হতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। তাছাড়া বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর টাকার প্রয়োজন হয় না। তাদের অতিরিক্ত অর্থ রয়েছে। যে কারণে তাদের কিছু ইনসেনটিভ দিতে হয়। এ ক্ষেত্রে তাদের ইনসেনটিভ দেওয়ার একমাত্র উপায় কর ছাড়। কর্পোরেট কর হারের ব্যবধান ১৫ শতাংশ করা হলে তারা তালিকাভুক্ত হওয়ায় ক্ষেত্রে আগ্রহী হবে।

তিনি আরও বলেন, বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত করতে হলে করপোরেট করের ব্যবধান বাড়াতে হবে। আগে তালিকা বহির্ভূত করের ব্যবধান ১০ শতাংশ থাকলেও চলতি বাজেটে সেটি কমিয়ে সাড়ে ৭ শতাংশ করা হয়েছে। এতে করে বহুজাতিক কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। এজন্য বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে পুঁজিবাজারে আনতে এ দুই ক্যাটাগ‌রির করপোরেট করের ব্যবধান বাড়াতে হবে।

এ সময় দুবাইতে আয়োজিত রোড শো নিয়ে শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম বলেন, উক্ত বিষয়টিকে রোড শো বলা হলেও বিষয়টি সচরাচর ঘটে যাওয়া রোড শো এর মতো নয়। বিএসইসি রোড শো অন দুবাই অনুষ্ঠানটিতে বিদেশী এবং বাংলাদেশি প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের দেশের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগে আগ্রহী করে তুলার জন্য কিছু বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। চার দিনের এই অনুষ্ঠানে থাকছে ভিন্ন ভিন্ন আয়োজন এবং বিশেষ কিছু আকর্ষণ, নন-রেসিডেন্ট বাংলাদেশি, সুকুক বা ইসলামিক বন্ডে আগ্রহী, এঞ্জেল ইনভেষ্টর, ভেনচার ক্যাপিটালিস্টসহ ভিবিন্ন সেক্টর থেকে আগত অতিথিদের জন্য ভিন্ন ভিন্ন আয়োজন। এছাড়া লন্ডন, রোম, টরন্ট, হংকং, নিউইয়র্ক, সিঙ্গাপুর, টোকিও, মালয়শিয়াসহ বিভিন্ন উন্নত শহরে ভবিষ্যতে এই আয়োজনের পরিকল্পনা ছিলো, তবে করোনা মহামারির কারণে তা হয়ে উঠছে না। তবে দুবাইয়ের পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক বলে দুবাই দিয়েই এই আয়োজনের সূচনা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।