বৈদেশিক বিনিয়োগের প্রলোভনের বিষয়ে বিবি’র সতর্ক বার্তা

bangladeshbank
শেয়ারটাইম্‌স২৪ডটকম: প্রশ্নযোগ্য পরিচিতির বিদেশী কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে আকর্ষণীয় বিনিয়োগের প্রলোভন এলে সে বিষয়ে ব্যাংকগুলোকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সোমবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক বিনিয়োগ বিভাগ থেকে এক সার্কুলারে এ সতর্কতা বার্তা দেয়া হয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেনে নিয়োজিত ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছেও পাঠানো হয়েছে এ সতর্কতা বার্তা।

বৈদেশিক বিনিয়োগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক এ এন এম আবুল কাশেম স্বাক্ষরিত সার্কুলারে বলা হয়, কেন্দ্রীয় ব্যাংক বা আর্থিক খাতের তত্ত্বাবধায়ক কর্তৃপক্ষের লাইসেন্সধারী সুনাম ও সঙ্গতিসম্পন্ন অর্থায়ন প্রতিষ্ঠান নয়, এমন পক্ষ থেকে বাংলাদেশের উদ্যোক্তারা অনেক সময় বড় বড় অঙ্কের আকর্ষণীয় বিদেশী বিনিয়োগ জোগানের প্রস্তাব পেয়ে থাকেন। তারা এসব প্রস্তাব নিয়ে কর্তৃপক্ষের সম্মতি, অনাপত্তি ও অনুমোদন লাভের জন্য ব্যাংকগুলো বা মন্ত্রণালয়ের দ্বারস্থ হন।

এতে আরো বলা হয়, প্রশ্নযোগ্য পরিচিতির ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান থেকে পাওয়া এসব তহবিল জোগান প্রস্তাব সাধারণত তথ্যগতভাবে অসম্পূর্ণ ও অস্বচ্ছ প্রকৃতির হয়ে থাকে। তা থেকে বিনিয়োগের জন্য প্রস্তাবিত তহবিল অপরাধ বা সন্ত্রাসমূলক তত্পরতা উেসর কিনা, সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায় না। প্রায় ক্ষেত্রেই প্রলোভনমূলক প্রস্তাবগুলোর মূল উদ্দেশ্য থাকে, বিনিয়োগ এনে দেয়ার প্রতিশ্রুতিতে প্রলুব্ধ সরলমনা উদ্যোক্তাদের থেকে প্রাথমিক ব্যয়ের নামে কিছু অর্থ আদায় করা।

তাই এ ধরনের প্রলোভনমূলক প্রস্তাবে প্রতারিত ও ক্ষতিগ্রস্ত হয়ার ঝুঁকি সম্পর্কে ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের সতর্ক হতে হবে। পাশাপাশি তাদের উদ্যোক্তা ও গ্রাহকদের জন্য সচেতনতা ও সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নেয়া সমীচীন হবে। এজন্য গ্রাহকদের হাতে পাওয়া বিনিয়োগ প্রস্তাবগুলোয় বিনিয়োগ তহবিল জোগানকারীর পরিচিতি, সুনাম ও সঙ্গতির তথ্যাদির যথাযথ যাচাই গুরুত্বপূর্ণ। সেই সঙ্গে প্রয়োজনমতো পূর্ণাঙ্গ তথ্য চাওয়া দরকার। এছাড়া বিনিয়োগ প্রস্তাবে উল্লেখ করা পদ্ধতিগত প্রক্রিয়ায় আন্তর্জাতিকভাবে সক্রিয় কোনো ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টতার উল্লেখ থাকলে সেটির যথার্থতা সম্পর্কেও ওই ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে নিশ্চিত হওয়ার পরই কেবল পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া বাঞ্ছনীয় হবে। আর স্থানীয় উদ্যোক্তা গ্রাহকের হাতে পাওয়া বিদেশী বিনিয়োগ প্রস্তাব প্রাথমিক পরীক্ষায় সন্দেহজনক মনে হলে গ্রাহককে সে বিষয়ে যথাযথভাবে অবহিত করে সতর্কতামূলক উপদেশ দেয়ার দায়িত্ব পালন করতে হবে ব্যাংকগুলোকে।

এ বিষয়ে ব্যাংকগুলোর আঞ্চলিক ও শাখা পর্যায়ের সব কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট নির্বাহীদের এবং তাদের মাধ্যমে উদ্যোক্তা গ্রাহকদের যথাযথভাবে অবহিত করার পদক্ষেপ নিতে হবে। তাছাড়া আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে গৃহীত ব্যবস্থা বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট বিভাগকে জানানোর জন্য ব্যাংকগুলোর প্রতি অনুরোধ করা হয়েছে সার্কুলারে।